ইয়াসিরের ‘কনকাশন বদলি’ সোহান

শাহিন শাহ আফ্রিদির বলটা যতটা উঠবে মনে করেছিলেন ইয়াসির ততটা ওঠেনি। ইয়াসির আলী ডাগ করেছিলেন বলের থেকে চোখ সরিয়ে। শাহিন শাহের বলটা সোজা গিয়ে আঘাত করে তাঁর মাথার পেছনের অংশে।

বেশ জোরে আঘাত। মাঠ থেকে উঠেই যেতে হয়েছে বাংলাদেশের অভিষিক্ত ব্যাটসম্যানকে।

ইয়াসির অবশ্য বল মাথার পেছনে লাগার পর ‘ঠিক আছি’ বলে একটা ‘থাম্বস আপ’ দেখিয়েছিলেন। কিন্তু মাথায় আঘাত বলে কথা। সতর্কতাবশতই তাঁকে মাঠ থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে। দ্রুতই হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে স্ক্যান করার জন্য।

তাঁর কনকাশন বদলি (মাথায় আঘাতজনিত কারণে কোনো খেলোয়াড় মাঠ থেকে উঠে গেলে তাঁর বদলি) হয়েছেন নুরুল হাসান।

মাঠ থেকে উঠে যাচ্ছেন ইয়াসির

প্রথম ইনিংসে মাত্র ৪ রান করেছিলেন । কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে বেশ গোছানো ব্যাটিং করছিলেন ইয়াসির। নিজ শহরের মাঠে বলেই কিনা নিজেকে প্রমাণের তাড়নাটা পুরোপুরি ছিল তাঁর ব্যাটে।

দ্রুত চার উইকেট পড়ে গেলে তৃতীয় দিন শেষ বিকেলে বেশ বিপাকেই পড়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। ইয়াসির নেমে জুটি গড়েছিলেন মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে। ভালোয় ভালোয় দিনটা পার করে দিয়েছিলেন। আজ চতুর্থ দিনের শুরুতেই মুশফিক হাসান আলীর বলে বোল্ড হয়ে ফিরলে ইয়াসির ব্যাটিংয়ের নেতৃত্বটা কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন।

জুটি গড়লেন লিটন দাসের সঙ্গে। ৭২ বলে ৩৬ করে ফেলেছিলেন এরই মধ্যে। ৬টি চমৎকার বাউন্ডারি মেরে নিজের আত্মবিশ্বাস প্রমাণ করেছিলেন। ভালো একটা অভিষেকের দিকেই এগিয়ে যাচ্ছিলেন ধীরে ধীরে।

সঙ্গে বাংলাদেশের সংগ্রহটাও বাড়িয়ে নিচ্ছিলেন। কিন্তু শাহিন শাহ আফ্রিদির শর্ট বলে মুহূর্তের ভুলে আঘাত পেতে হলো তাঁর মাথায়। ইয়াসির উঠে যাওয়ার পর উইকেটে এসে লিটনের সঙ্গী এখন মেহেদী হাসান মিরাজ।

ইয়াসিরের কনকাশন বদলি নুরুল হাসান

কনকাশন বদলি নুরুল এর আগে টেস্ট খেলেছেন ৩টি। সবশেষ টেস্ট খেলেছেন ২০১৮ সালে। তাঁর অভিষেক অবশ্য ২০১৭ সালে নিউজিল্যান্ড সফরে, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। অভিষেকেই ৪৭ রানের একটি ইনিংস খেলেছিলেন ক্রাইস্টচার্চে।

২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে নর্থ সাউন্ডে ৬৪ রানের একটি ইনিংস খেলেন। সে সফরেই কিংস্টোন টেস্টে জোড়া শূন্য পাওয়ার পর বাংলাদেশের টেস্ট দলে আর ডাকই পাননি এই উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান।

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Back to top button