ওসমান পরিবারের নামে রফিউর রাব্বির কটুক্তির বিরুদ্ধে খোকন সাহার জিডি, ‘তদন্তের নির্দেশ’

ঐতিহ্যবাহী ওসমান পরিবারের সদস্যদের নামে রাস্তা ও ব্রীজের নামকরণের পর রফিউর রাব্বি নেতিবাচক বক্তব্যের প্রেক্ষিতে মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহার দায়ের করা সেই সাধারণ ডাইরী (জিডি) আমলে নিয়েছে আদালত। আগামী ১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দিতেও বলা হয়েছে।

সদর থানায় করা ওই জিডি কোন আইনানুগ ব্যবস্থা না নেওয়ার প্রেক্ষিতে খোকন সাহা আদালতের স্মরণাপন্ন হলে রোববার (৮ আগস্ট) চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. শাকিল আহাম্মদ মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তাকে এ আদেশ দেন। আদেশের অনুলিপি নারায়ণগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবরও পাঠানো হয়েছে।

আদেশে লেখা হয়েছে, ‘জিডি ও বিজ্ঞ আইনজীবীর আবেদন পর্যালোচনা করলাম। জিডির বিষয়টি অধর্তব্য অপরাধের বিষয় হওয়ায় তা তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন আগামী ১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হলো।’

এ ব্যাপারে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা বলেন, ‘৮ জুন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বী অশালীন মন্তব্য করেন। ১৫ জুন তার নেই মন্তব্যের বিষয়ে থানায় সাধারণ ডাইরী করলেও দীর্ঘ ১ মাসেও কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। ফলে ১৮ জুলাই আদালতের স্মরণাপন্ন হতে হয়। অবশেষে আদালত সাধারণ ডাইরীটি আমলে নিয়ে আগামী ১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দিতে বলেছেন।’

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ২৫ মে ৩টি আলাদা স্মারকে বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব মো. গোলাম জিলানী প্রজ্ঞাপন জারী করেন। সেখানে চাষাড়া-খানপুর-গোদনাইল-আদমজী ইপিজেড সড়ককে (আর ১১৫) ভাষা সৈনিক “বেগম নাগিনা জোহা সড়ক” , সাইন বোর্ড চেইনেজ আঞ্চলিক মহা সড়কটি স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত (মরনোত্তর) “ভাষা সৈনিক এ.কে.এম সামসুজ্জোহা সড়ক” ও নির্মাণাধীন ৩য় শীতলক্ষ্যা সেতুটির নাম বীর মুক্তিযোদ্ধা ‘এ.কে.এম নাসিম ওসমান সেতু’ নামে সরকার নামকরণ করা হয়।

সদর মডেল থানায় গত ১৫ জুনের দায়ের করা সাধারণ ডাইরীতে (নারায়ণগঞ্জ থানার জি.ডি খ্রিঃ-৬৪৬) এড. খোকন সাহা উল্লেখ করেন, ৮ জুন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বী বক্তব্যে বলেন, ‘সরকারের কতিপয় মন্ত্রী ও আমলারা টাকা খেয়ে এই নারায়ণগঞ্জের রাস্তা ও বিভিন্ন স্থাপনা বিভিন্ন জনের নামে নামকরণ করেছে। আমরা এ মন্ত্রী, আমলাদের প্রশ্ন করতে চাই যে, দয়া করে আপনারা আমাদের জানান যাদের নামে নামকরণ করলেন, তাদের এই নারায়ণগঞ্জ বা দেশে অবদানটা কি? লাশ ফেলা, খুন খারাবী এই গুলি যোগ্যতার মধ্যে পরে কি না এতটুকু জানান।’ ৯ জুন তার এই বক্তব্য বিভিন্ন ইলেকট্রিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার শিরোনাম হয়। বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি যাদের নামে রাস্তা ও সেতুর নামকরণ করেছেন ও পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পর্যালোচনা করে আদেশ দিয়েছেন।

জিডিতে খোকন সাহা দাবী করেন, ‘বিবাদী রফিউর রাব্বী অপকর্ম করে রাষ্ট্র, রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রীদের ইচ্ছাকৃত ভাবে অবজ্ঞা করিয়া রাষ্ট্রদ্রোহিতার কাজ করছেন। ইতিপূর্বে ৬-৭ বৎসর যাবৎ বাংলাদেশ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে বিভিন্ন সময় অশালীন মন্তব্য করেছেন যা রাষ্ট্রদ্রোহিতার সামিল।’

তবে, নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহজামান বলেন, ‘আমি এখনও আদেশটি পাইনি। পেলে আদেশ অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Back to top button