ক্লাবের খেলা থেকে অবহিত নিল মেসি।

কিছু দিন আগেই খবর এলো ৫০ ভাগ বেতন কমিয়ে হলেও মেসি বার্সেলোনায় থাকছেন। ক্লাবটির সঙ্গে তাঁর চুক্তি হলো। দিন কয়েক যেতে না যেতেই এলো বার্সা সমর্থকদের মন খারাপের খবর। আর্জেন্টাইন অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে বার্সা ছাড়তে হলো। মেসি স্বেচ্ছায় যাচ্ছেন না, ক্লাবও ছাড়েনি। তবে বাধ্য হয়েই ক্লাব ছাড়তে হলো তাঁকে।
লা লিগার আর্থিক নিয়মের কারণেই প্রিয় ক্লাব ছেড়ে যাচ্ছেন মেসি। বার্সেলোনা অফিসিয়ালি ভাবে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। দলের সবচেয়ে বড় তাঁরকার দল ছুটের খবরটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বৃহস্পতিবার রাতে জানিয়েছে বার্সা।
মেসিকে রাখতে নিজেদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছে বার্সেলোনা। অভিমানী মেসিকে ক্লাবটির নতুন সভাপতি রাজিও করে ছিলেন। অভিমান ভেঙ্গে বেড়ে উঠার ক্লাবে থাকতে ‘সম্মত’ হন মেসি নিজেও। কোপা আমেরিকা শিরোপা জেতা মেসি চ্যাম্পিয়নের পরই বার্সা সমর্থকদের খুশির খরব দেন। জানানো হয় ক্লাবেই থাকছেন মেসি।বার্সেেলোনাও দলের প্রধান তাঁরকাকে রাখতে পেরে কিছুটা স্বস্তিতে ছিলো। কিন্তুু সেটি আর হলো না লা লিগার আর্থিক নিয়মের কারণেই। লিগ আর্থিক নিয়ম বজায় রাখতে গিয়ে মেসি ও বার্সা দু’পক্ষ মিলেই এমন ‘কঠীন’ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। যা বৃহস্পতিবার রাতে ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে নিশ্চিত করেছে বার্সা।মেসিকে ধরে রাখতে না পারায় বার্সায় দু‍:খ প্রকাশ করেছে সমর্থকদের কাছে। আর্জেন্টাইন তাঁরকার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে ভবিষ্যত জীবনের জন্য শুভ কামনা জানিয়েছে বার্সা। তবে মেসি এখনো আনুষ্ঠানিক ভাবে কোনো বক্তব্য দেননি।বার্সার সভাপতি নির্বাচিত হয়ে হোয়ান লাপোর্তা জানিয়ে ছিলেন, তিনি মেসিকে বার্সায় রাখার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন। আর্জেন্টাইন তাঁরকার সাথে তাঁর একটা সু-সম্পর্ক আছে। তার কথা মেসি রাখবেন। অবশেষে হয়তো তিনি সফলও হতে যাচ্ছিলেন। বার্সা তাঁরকা লিওনের মেসি আগামি দুই বছরের জন্য চুক্তি নবায়ন করেছিলেন এমন খবর কিছু দিন আগেই আসে গণমাধ্যমে। কিন্তুু মেসি ও বার্সার চেষ্টা বিফলে গেলো লা লিগার আর্থিক নিয়মের কারণে। অবশেষে মেসিকে ক্লাব ছাড়তেই হলো।মেসিকে দলে নেওয়ার জন্য বিশ্বের বড় বড় ক্লাবগুলো মুখিয়ে আছে। বার্সার এমন ঘোষণার পর তাদের দৌড় ঝাপ বেড়ে যাবে কয়েকগুণ। তবে শেষ পর্যন্ত কোন ক্লাবকে বেছে নেবেন বিশ্ব ফুটবলের এই বড় তাঁরকা সেটি দেখার অপেক্ষায় সমর্থকেরা। তার জন্য হয়তো আপাতত আরো দু’এক দিন অপেক্ষা করতে হবে তার সমর্থকদেরকে।

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Back to top button