দশ বছরে নাসিকে প্রায় একশো কোটি টাকার কাজ হয়েছে : মেয়র আইভি

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামীলীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আলোচিত সমালোচিত ও জন নন্দিত ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, আমি যখন ২০১১ সালে নির্বাচন করতে আসলাম আপনাদের এইদিকে, তখন অনেক জায়গায় পানি ও কাঁদা দিয়ে হেটে হেটে যেতে হয়েছে, এই রকম রাস্তাঘাট কিছুই ছিলো না। বিগত দশ বছরে নাসিকে প্রায় একশো কোটি টাকার কাজ হয়েছে। আপনাদের ক্যানেল পাড়ের কত বড় রাস্তা হয়েছে আপনারা দেখেছেন । এখানে ডাম্পিং স্পোটটা হচ্ছে সেখানে ২৩ একর জায়গা আমরা একোয়ার করেছি। সেখানে ময়লা আর্বজনা থেকে বিদ্যুৎ উৎপন্ন হবে। বাংলাদেশে প্রথম ময়লা আর্বজনা থেকে বিদ্যুৎ উৎপন্ন হচ্ছে আপনাদের ওয়ার্ডে। এই জায়গার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩০০ কোটি টাকা দিয়েছিলো। চাইনিজ একটি কোম্পানি কাজ পেয়েছে। আগামী ৬ মাসের মধ্যে এই কাজটি শুরু হতে যাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) বিকালে নাসিকের সিদ্ধিরগঞ্জে ৯নং ওয়ার্ডের জালকুড়ি মাঠে নির্বাচনী গণসংযোগকালে তিনি উপস্থিত লোকজনের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, আপনাদের আর চাহিদার কিছু নাই, রাস্তাঘাট ড্রেন সব হয়েছে। এখন আপনাদের চাহিদা, খেলার মাঠ, স্কুল, র্পাক। এগুলো এমন কোন কঠিন কাজ না। এত টাকা দিয়ে যদি রাস্তা ও ড্রেন করে দিতে পারি তাহলে ৫/১০ কোটি টাকা দিয়ে মাঠ ও র্পাক করে দিতে পারবো।

আইভী বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা দাবি করেছে তাদের বসার জন্য একটি জায়গা করে দিতে। আমি কথা দিয়ে যাচ্ছি, নির্বাচিত হলে একতলা না দোতলা করে আমি আপনাদের অফিস করে দিবো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য আনেক কিছু করেছে। দুইশো, তিনশো টাকা ভাতা পেত মুক্তিযোদ্ধারা তা বাড়িয়ে ২০ হাজার টাকা করা হয়েছে। মা, বোনদের জন্য বিধবা ভাতা ও বয়স্ক ভাতা করেছে।

তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য রাস্তা করে দেওয়া হয়েছে, তাদের জন্য নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন ট্যাক্স মওকুফ করে দিয়েছি। পানির বিলও দিতে হবে না, সেটাও আমি ঘোষণা দিয়েছি। আপনাদের এই জায়গায় বড় একটা ঈদগা করে দিয়েছি। আমি আবার নির্বাচিত হয়ে আসলে আপনাদের ছোট ছোট কাজগুলো করে দিবো।

নৌকা মার্কার প্রার্থী আইভী আরও বলেন, আপনাদের নারীদের সংগঠিত করার জন্য আমাদের এইখানে সিটিসি গঠন করা হয়েছে। সিটিসি মানে সিটি কমিউনিটি সেন্টার। নারীদের উন্নয়ন, নারীদের ক্ষমতায়ন নারীরা যেনো ঘরে বসে না থাকে, পুরুষের পাশাপাশি তারাও যেনো উপার্জন করতে পারে, তাদের একটা অবস্থান গড়ে তুলতে পারে তাই আমরা এই প্রজেক্টটি হাতে নিয়েছি।

আইভী বলেন, আমি জানি ৯ নাম্বার ওয়ার্ড জালকুড়ি একটি আওয়ামীলীগের ঘাটি। মা-বোন সকলে আপনারা নৌকায় ভোট দিবেন। আমি আপনাদের কাছে বলে গেলাম আমাকে অব্যশই ভোট দিয়েন। আমি যখন উন্নয়ন করেছি আমি কখনও দল দেখি নাই। দলবাজিও কখনও করি নাই। মানুষ যখন গিয়েছে আমি তার কাজটি করে দেওয়ার চেষ্টা করেছি।

তিনি আরও বলেন, আমি সকলকে বলতে চাই আমি নারায়ণগঞ্জে সাতটি মসজিদ করেছি। হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য মন্দির করেছি। সমান তালে মানুষের জন্য কাজ করেছি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে করেছি। উনি প্রচুর টাকা আমাকে দিয়েছে। আমি নির্বাচিত হলে আরও প্রচুর টাকা আমাকে দিবে আপনাদের কল্যাণে কাজ করার জন্য।

তিনি বলেন, এই মাঠে দাঁড়িয়ে বলে গেলাম আপনারা আমাকে জয়যুক্ত করলে সর্বপ্রথম এই মাঠের জন্য টেন্ডার দিবো। এই মাঠ একবার টেন্ডার হয়েছিলো জমি জমার কারণে হয় নাই। আমরা চেষ্টা করবো সমস্যা সমাধান করে কাজটি করে দেওয়ার জন্য। আমি নদীর ওপারে সোরওয়ার্দী ক্লাব করে দিয়েছি। সিরাজদৌল্লা মাঠ করেছি। চারুকলার মাঠ করেছি সুতরাং আপনাদেরও করে দিবো।

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Back to top button