বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলায় ভেজাল বিরোধী অভিযানে ৭০ হাজার ৫শ টাকা জরিমানা।

র‌্যাবের বিশেষ মোবাইল কোর্ট সপ্তাহ উপলক্ষে র‌্যাব-৮ সিপিসি-১ (পটুয়াখালী ক্যাম্প) ও জেলা প্রশাসন বরগুনার যৌথ উদ্যোগে বরগুনার আমতলী পৌরশহরে হোটেল এবং বেকারীতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য প্রস্তুত ও পরিবেশণ করার অপরাধে ৭টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে ৭০ হাজার টাকা জরিমাণা আদায় করা হয়েছে। ভেজাল ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্যপণ্য উৎপাদন, মজুত ও বিক্রির অভিযোগে অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করেন জেলা এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু বকর সিদ্দিক।


বরগুনার আমতলী পৌরসভায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বেকারি কারখানা ও খাবার হোটেলে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে বিভিন্ন ধারায় ৭০ হাজার ৫শ টাকা জরিমানা করেন জেলা এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট।

র‌্যাব সূত্রে জানা গেছে, বিশেষ মোবাইল কোর্ট সপ্তাহ ২০২১ উপলক্ষে মঙ্গলবার(৭ সেপ্টেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে ১.৩০ পর্যন্ত আমতলী পৌর শহরের বিভিন্ন স্থানে র‌্যাব-৮ সিপিসি-১ পটুয়াখালী ক্যাম্প কর্তৃক ভেজাল খাদ্যদ্রব্য প্রস্তুত ও পরিবেশণ করার অপরাধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। এতে পৌরশহরের ৭টি বেকারী ও খাবার হোটেল মালিককে ৭০ হাজার টাকা জরিমাণা আদায় করা হয়।

এসময়ে মারিয়া বেকারিসহ ৪টি কারখানাকে ৬০ হাজার টাকা ও ২টি খাবার হোটেলকে ১০ হাজার ৫শ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এদের মধ্যে ব্যবসায়ী মোঃ মোজাম্মেল হককে ২০ হাজার, মোঃ মোফাজ্জেল হোসেনকে ১০ হাজার, মোঃ মাসুদ তালুকদারকে ৫ হাজার, মোঃ আল আমিনকে ৫০০, গৌতম কুমার ঘোষকে ৫ হাজার, মোঃ জুয়েল হোসেনকে ১৫ হাজার এবং মোঃ মনির হোসেনকে ১৫ হাজার টাকা করে জরিমাণা আদায় করা হয়।

এ বিষয়ে জেলা এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট আবুবকর সিদ্দিক বলেন, সারাদেশে একযোগে এ অভিযান পরিচালনা হচ্ছে। আমতলী পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডে মারিয়া বেকারিসহ বেশ কয়টি কারখানার পরিবেশ খুবই খারাপ ও অস্বাস্থ্যকর থাকায় তাদের জরিমানা করা হয়েছে।সেখানে বেকারির সঙ্গে ড্রেন, ডোবা ও অস্বাস্থ্যকর টয়লেট ছিলো, যে কারণে সঠিক পয়:নিষ্কাশন ব্যবস্থা নেই এবং শ্রমিকদের স্বাস্থ্যবিধিও সঠিকভাবে মানা হয়নি। এছাড়াও পোড়া তেলে তেলাপোকার উপস্থিতি থাকায় বিভিন্ন ধারায় আমরা ৪টি বেকারি ও কারখানাকে ৬০ হাজার টাকা এবং ২টি খাবারের হোটেলে ১০,৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়। বিভিন্ন ধারায় তাদের সর্বমোট ৭০ হাজার ৫শ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে।

বরগুনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক মোঃ আবু বকর সিদ্দিকী ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন আইন ২০০৯ এর ৪৩/৪৫/৫২/৫৩ ধারা মোতাবেক অর্থদন্ড প্রদান করেন। এসময় তার সাথে র‌্যাব-৮ সদস্য ও স্থাণীয় সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Back to top button