বিপিএলে সবচেয়ে দামি দল বরিশাল

গতকাল সোমবার শেষ হয়েছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) প্লেয়ার ড্রাফটস। ৬টি দল নিজেদের পছন্দের খেলোয়াড় বেছে নিয়েছে। এবার ‘এ’ ক্যাটাগরিতে থাকা দেশি ক্রিকেটারের পারিশ্রমিক ৭০ লাখ। বিদেশি ক্রিকেটারের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক ৬৪ লাখ টাকার মতো। ড্রাফটের আগে সরাসরি দলভুক্ত করা দেশি-বিদেশি ক্রিকেটারদের নিঃসন্দেহে আরো বেশি পারিশ্রমিক দেওয়া হচ্ছে। ৮ জন বিদেশিসহ সর্বোচ্চ ২২ খেলোয়াড় নেওয়ার সুযোগ ছিল। তবে কোনো দলই এতজন ক্রিকেটার নেয়নি।

‘এফ’ ক্যাটাগরির খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিকের হিসাবও হয় লাখে। ‘এ’ ক্যাটাগরিতে থাকা দেশি ক্রিকেটারের পারিশ্রমিক কাগজে-কলমে ৭০ লাখ। বিদেশি ক্রিকেটারের ক্ষেত্রে ড্রাফটে থাকা ক্রিকেটারের সর্বোচ্চ মূল্য ৭৫ হাজার ডলার বা ৬৪ লাখ টাকার একটু বেশি। সরাসরি চুক্তিতে ড্রাফটের বাইরে থেকে কেনা বিদেশি ক্রিকেটারের পারিশ্রমিক তো অজানাই থেকে গেছে। তাঁদের দাম কত কে জানে! ড্রাফটে না থাকায় তাঁদের মূল্য যে ৭৫ হাজার ডলারের অনেক বেশি, এতে সন্দেহ নেই।
কাল ড্রাফটের পরই দল গোছানো চূড়ান্ত হয়নি। ড্রাফটে দল না পাওয়া ক্রিকেটারদের টানার সুযোগ আছে সব দলেরই। সর্বোচ্চ ১৪ জন দেশি ও ৮ বিদেশি ক্রিকেটার নিতে পারবে সব দল। এখনো কোনো দলই ২২ জনের স্কোয়াড পূরণ করতে পারেনি।

এবার তাকানো যাক খেলোয়াড় কিনতে দলগুলোর খরচের দিকে। ছয়টি ফ্র্যাঞ্চাইজি দল খেলোয়াড়ের পেছনে মোট খরচ করেছে প্রায় ২৫ কোটি ৩ লাখ ৯ হাজার টাকা। এর মধ্যে সবচেয়ে ‘দামি দল’ ফরচুন বরিশাল।

ফরচুন বরিশাল

৪ কোটি ৯৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা

ড্রাফটের আগেই সাকিব আল হাসানকে সরাসরি চুক্তিতে দলে টেনেছে ফরচুন বরিশাল। বাংলাদেশের এ তারকা অলরাউন্ডার ‘এ’ ক্যাটাগরিতে পারিশ্রমিক পাবেন ৭০ লাখ টাকা। ড্রাফট ও সরাসরি চুক্তি মিলিয়ে দেশি মোট ১৩ খেলোয়াড়ের পেছনে ফরচুন বরিশালের খরচ ৩ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। ড্রাফটে বিদেশি ক্যাটাগরিতে শ্রীলঙ্কার নিরোশান ডিকভেলা, ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওবেদ ম্যাকয় ও আলজারি জোসেফকে দলে টেনেছে ফরচুন বরিশাল। ‘বি’ ক্যাটাগরিতে ডিকভেলার পারিশ্রমিক ৫০ হাজার ডলার, ‘এ’ ক্যাটাগরিতে ওবেদ ম্যাকয়ের পারিশ্রমিক ৭৫ হাজার ডলার এবং ‘সি’ ক্যাটাগরিতে জোসেফ পাবেন ৪০ হাজার ডলার। টাকার মূল্যমানে এসব বিদেশি খেলোয়াড়ের পারিশ্রমিক দেশি খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিকের সঙ্গে যোগ করলে সংখ্যাটা দাঁড়ায় প্রায় ৪ কোটি ৯৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা। বিপিএলে টাকা খরচের দৌড়ে ফরচুন বরিশাল আপাতত শীর্ষে।

ড্রাফটে সবচেয়ে বেশি খরচ করেছে বরিশাল

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস

৪ কোটি ৯৬ লাখ ৮৫ হাজার টাকা

বিপিএলে এরই মধ্যে দুবার শিরোপার স্বাদ পাওয়া কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস বরাবরই শক্তিশালী দল গড়ে থাকে। গতকালের ড্রাফটেও এর ব্যত্যয় ঘটতে দেয়নি ফ্র্যাঞ্চাইজিটি। ৭০ লাখ টাকা পারিশ্রমিকে সরাসরি চুক্তিতে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে মোস্তাফিজুর রহমানকে দলে টেনেছে কুমিল্লা। সরাসরি চুক্তিতে তিন বিদেশি ফাফ ডু প্লেসি, মঈন আলী ও সুনিল নারাইনের পারিশ্রমিক জানা যায়নি।

সরাসরি চুক্তিসহ মোট ১৪ জন দেশি খেলোয়াড় দলে টেনেছে কুমিল্লা। তাঁদের মোট পারিশ্রমিক ৪ কোটি ১১ লাখ টাকা। বিদেশি ক্যাটাগরির ড্রাফটে শ্রীলঙ্কার কুশল মেন্ডিস ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওশান টমাসকে দলে টেনেছে কুমিল্লা। দুজনই ‘বি’ ক্যাটাগরির হওয়ায় ৫০ হাজার ডলার করে পারিশ্রমিক পাবেন। সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিকে প্রায় ৪ কোটি ৯৬ লাখ ৭৫ হাজার টাকা খরচ করে দুইয়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস।

ঢাকা

৪ কোটি ৮৮ লাখ ৯৫ হাজার টাকা

এবার বিপিএলে ঢাকা মানেই তামিম ইকবাল, মাশরাফি বিন মুর্তজা ও মাহমুদউল্লাহ? অনেকের কাছে তেমন মনে হওয়াই স্বাভাবিক। তিনজনই জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক। বয়স, পারফরম্যান্স ও ম্যাচ খেলার মধ্যে থাকা না থাকার হিসেবে তিনজনের অমিল থাকলেও তাঁদের সবাই ‘এ’ ক্যাটাগরিতেই পারিশ্রমিক পাবেন। সরাসরি চুক্তিতে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে ঢাকা দলে টেনেছে টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহকে।

সরাসরি চুক্তিতে ঢাকার বাকি তিন বিদেশি ক্রিকেটারের কাগজে-কলমে পারিশ্রমিক কালই জানা গেছে—শ্রীলঙ্কার পেসার ইসুরু উদানা ‘এ’ ক্যাটাগরিতে পাবেন ৭৫ হাজার ডলার, ‘বি’ ক্যাটাগরিতে আফগানিস্তানের কায়েস আহমেদ পাবেন ৫০ হাজার ডলার এবং ‘ডি’ ক্যাটাগরিতে আফগানিস্তানের নজিবুল্লাহ জাদরান পাবেন ৩০ হাজার ডলার। সরাসরি চুক্তিসহ এ পর্যন্ত মোট ১২ জন দেশি খেলোয়াড়ের পারিশ্রমিকে ঢাকার খরচ হবে ২ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। ড্রাফট থেকে বিদেশি ক্যাটাগরিতে আফগানিস্তানের মোহাম্মদ শাহজাদ ও ফজলে হক ফারুকীকে দলে টেনেছে ঢাকা। ‘বি’ ক্যাটাগরিতে শাহজাদ ৫০ হাজার ডলার পারিশ্রমিক পাবেন। ফজলে হক ফারুকী পাবেন ২০ হাজার ডলার। সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত পারিশ্রমিকে কাগজে-কলমে ঢাকার মোট খরচ দাঁড়িয়েছে ৪ কোটি ৮৮ লাখ ৯৫ হাজার টাকা। খরচের দৌড়ে ঢাকা তৃতীয়।

ড্রাফটে সবচেয়ে কম খরচ করেছে চট্টগ্রাম

সিলেট সানরাইজার্স

৪ কোটি ৫ লাখ ১৯ হাজার টাকা

জাতীয় দলে এখনকার ক্রিকেটারদের মধ্যে তাসকিন আহমেদ ছাড়া আর কাউকে দলে টানেনি সিলেট সানরাইজার্স। সরাসরি চুক্তিতে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে তাসকিনকে ৭০ লাখ টাকা পারিশ্রমিকে ড্রাফটের আগেই দলে টেনেছে সিলেট। এ চুক্তিতে বাকি তিন বিদেশির পারিশ্রমিকের অঙ্ক জানা যায়নি। সরাসরি ও দেশি ড্রাফট মিলিয়ে মোট ১৩ জন দেশি ক্রিকেটারকে দলে টেনেছে সিলেট। দেশি ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক হিসেবে সিলেটের কাগজে-কলমে খরচ ২ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। বিদেশি খেলোয়াড়দের ড্রাফটে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে ইংল্যান্ডের রবি বোপারা, ‘ডি’ ক্যাটাগরিতে শ্রীলঙ্কার অ্যাঞ্জেলো পেরেরা এবং ‘ই’ ক্যাটাগরিতে আরব আমিরাতের সিরাজ আহমেদকে টেনেছে সিলেট। বোপারার পারিশ্রমিক ৭৫ হাজার ডলার, পেরেরা পাবেন ৩০ হাজার ডলার এবং সিরাজের পারিশ্রমিক ২০ হাজার ডলার। সব মিলিয়ে খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিকে কাগজে-কলমে ৪ কোটি ৫ লাখ ১৯ হাজার টাকার হিসাব নিয়ে চারে সিলেট সানরাইজার্স।

খুলনা টাইগার্স

৩ কোটি ৪২ লাখ ৪৫ হাজার টাকা

বাকি ফ্র্যাঞ্চাইজি দলগুলোর খরচের সঙ্গে খুলনার খরচের খাতা হয়তো মিলবে না। তবে আপাতত অল্প খরচেই স্কোয়াডের ভিতটা বেশি শক্তিশালী করেছে খুলনা টাইগার্স। মুশফিকুর রহিমকে আগেই সরাসরি চুক্তিতে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে দলে টেনেছে খুলনা। সরাসরি চুক্তিতে শ্রীলঙ্কার অলরাউন্ডার থিসারা পেরেরা, ব্যাটসম্যান ভানুকা রাজাপক্ষে ও আফগানিস্তানের নাভিন উল হককেও টেনেছে খুলনা। এর বাইরে সৌম্য সরকার ও মেহেদী হাসানের মতো ক্রিকেটারও আছে দলটিতে। দেশি ক্যাটাগরিতে মোট ১০ ক্রিকেটারকে আপাতত নিয়েছে খুলনা। ২ কোটি ৯১ লাখ টাকা দেশি ক্যাটাগরিতে এ পর্যন্ত খরচ করেছে দক্ষিণাঞ্চলের ফ্র্যাঞ্চাইজিটি। বিদেশিদের ড্রাফট থেকে শ্রীলঙ্কার সেকুগ্গে প্রসন্নকে ৪০ হাজার ডলার ও জিম্বাবুয়ের সিকান্দার রাজাকে ২০ হাজার ডলারে নিয়েছে খুলনা। সব মিলিয়ে ৩ কোটি ৪২ লাখ টাকা এখন পর্যন্ত কাগজে-কলমে খরচ করেছে খুলনা।

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স

৩ কোটি ৪১ লাখ ৬০ হাজার

জাতীয় দলের স্পিনার নাসুম আহমেদকে সরাসরি চুক্তিতে ‘বি’ ক্যাটাগরিতে ড্রাফটের আগেই দলে টানে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। এ চুক্তিতে ইংল্যান্ডের বেনি হাওয়েল, উইল জ্যাকস এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের কেনার লুইসের পারিশ্রমিক জানা যায়নি। কাল ড্রাফটে দেশি ক্যাটাগরিতে (সরাসরি চুক্তিসহ) মোট ১১ ক্রিকেটার দলে টেনেছে চট্টগ্রাম। দেশি খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিকে চট্টগ্রামের খরচ হবে ২ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। বিদেশিদের ড্রাফটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের চ্যাডউইক ওয়ালটন ও রায়াদ এমরিতকে নিয়েছে চট্টগ্রাম। ‘সি’ ক্যাটাগরিতে দুজনই ৪০ হাজার ডলার করে পারিশ্রমিক পাবেন। সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত পারিশ্রমিকে ৩ কোটি ৪১ লাখ ৬০ হাজার টাকার হিসাব নিয়ে পাঁচে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Back to top button