বিপিএলে নজর সাকিবের, ভুল কম ধরতে বললেন তিনি

করোনার কারণে ২০২০-২১ মৌসুমের বিপিএল মাঠে গড়ায়নি। তবে গত অক্টোবরে অনেকটা বিপিএলের আদলেই স্থানীয় ক্রিকেটারদের নিয়ে পাঁচ দলের বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আয়োজন করেছে বিসিবি। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগও হয়েছে টি-টোয়েন্টি সংস্করণে, যা অক্টোবর-নভেম্বরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ক্রিকেটারদের প্রস্তুতিতে সাহায্য করেছে।

বিপিএলে সাকিব
বিপিএলে সাকিব

২০২২ সালের অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় আরেকটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হওয়ার কথা। তার আগে ২০২১-২২ মৌসুমে বিপিএলের দিকে তাকিয়ে আছেন সাকিব আল হাসান। আজ রাজধানীর এক হোটেলে ডিবিএল সিরামিকসের অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে সাকিব বলেছেন, ‘যত দূর আমি জানি, এবার বিপিএলের জন্য সময় রাখা আছে। এটা যদি হয়, তাহলে খুবই ভালো হবে, ক্রিকেটারদের জন্যও, বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্যও।’

তবে বিপিএল আয়োজনে আরও ধারাবাহিক হওয়ার সুযোগ দেখছেন সাকিব। সেটি তিনি খেলার সময়সূচি ও দলের ক্ষেত্রে দেখতে চান, ‘বিপিএলের জন্য যদি একটা আলাদা সময় নির্ধারণ করা থাকে, নির্দিষ্ট দল যদি থাকে, তাহলে আরও গুছিয়ে করা সম্ভব। যেটা থেকে হয়তো আরও কিছু ক্রিকেটার বেরিয়ে আসবে। কারণ, প্রতিযোগিতা স্বাভাবিকভাবেই বেশি থাকে, যেহেতু বিদেশি ক্রিকেটাররা খেলবে। বিসিবিও খুবই আগ্রহী বিপিএলটা ভালোভাবে করার জন্য।’

দেশের মাটিতে টানা দুটি টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের পর আজ রবিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাত করেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এবং বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেইজে সাকিব আজ সন্ধ্যায় এই তথ্য দিয়েছেন। সঙ্গে পোস্ট করেছেন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছবি।

সাকিব লিখেছেন, ‘আজ সন্ধ্যায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে, সঙ্গে ছিলেন পাপন ভাই।’

বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্সের প্রসঙ্গও এসেছে সংবাদ সম্মেলনে। ঘরের মাঠের কন্ডিশনে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জিতলেও প্রশ্ন উঠছে বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের সম্ভাবনা নিয়ে। সাকিব অবশ্য জয় থেকে পাওয়া আত্মবিশ্বাসকেই বড় করে দেখছেন। কন্ডিশনসংক্রান্ত নেতিবাচক কথা কানেই তুলতে চান না তিনি, ‘দেখুন, আপনি যদি ভুল ধরতে চান, যেকোনো জিনিসেরই ভুল ধরা সম্ভব। তাই ভুলটা একটু কম দেখে, ভালোর দিকে যদি তাকান, তাহলে অনেক ভালো কিছু দেখতে পাবেন। আপনার দেখার দৃষ্টিটা আসলে কেমন সেটা বুঝতে হবে।’

সাকিব নিজেই একটি ভালো দিক ধরিয়ে দিলেন। টি-টোয়েন্টি দলে অভিজ্ঞ ও তরুণ ক্রিকেটারদের যে পারফরম্যান্স, সেটি নাকি বাংলাদেশ দলের ভালো করার বড় কারণ, ‘আমার কাছে মনে হয় সব ক্রিকেটার কমবেশি পারফরম্যান্স করছে এবং একটা দল হিসেবে খেলতে পারছি। এটাই জেতার বড় কারণ।’

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button