বেতাগীতে তাবলীগ জামাতের ১৭ জন সদস্য দের মধ্য ১০ জন খাবার খেয়ে বেহুশ,ভর্তি হাসপাতালে।

বেতাগীর ইতিহাসে লজ্জাজনক ও দুঃখজনক একটি ঘটনা ঘটে গেছে গতকাল রাত্রে এশার নামাজের পরে।
বেতাগী পৌরসভা ৯ নং ওয়ার্ডের সাবেক চেয়ারম্যান শাহজাহান কবিরের বাড়ির মসজিদে ।


তাবলীগ জামাতের একটি দল আসে।
যে দলে তারা ১৭ জন সদস্য ছিল যারা নোয়াখালী, জামালপুর, ঢাকা এবং নরসিংদীর বাসিন্দা।
তাবলীগ জামাতের বরাত দিয়ে জানা যায়, তারা যখন এশার সালাত আদায় করতে ছিল তখন কে বা কাহারা তাদের রাতের খাবারের সাথে কিছু একটা মিশিয়ে রাখে এবং তারা নামাজের ভিতরে শব্দ পায় খাবারের পাতিল নাড়াচাড়া করার ।
নামাজ শেষ না করে দেখা যায় না বিধায় তারা সালাম ফিরিয়ে তারপরে দেখে সবকিছু স্বাভাবিক আগের মতই ।


কিন্তু তারা যখন ১০ টার পরে রাতের খাবার খাওয়া শেষ করেছে তার কিছুক্ষণ পরেই কেউ কেউ ঘুমিয়ে পড়ছে,কারও মাথা ঘুরাচ্ছে, কেউ কেউ চোখে ঝাপসাও দেখা শুরু করেছে।
উল্লেখ্য তাদের ভেতরে দুইজন রাতে রুটি কলা খেয়েছে এবং তারাই সুস্থ ছিল।
রাত দেড়টার দিকে অবস্থার অবনতি হলে স্থানীয় কিছু সাথী ভাইদের কে নিয়ে তাদের বেতাগী হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় ।
১৭ জনের ভিতর দশ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে, তিনজন সুস্থ হয়ে মসজিদে ফিরে গেছে বাকি এখনো সাতজন ভর্তি আছে ।
তাদের ভিতর দুইজনের ঘুম এখনো ভাঙেনি তারা এখনো ঘুমাচ্ছে।


বেতাগী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মহোদয় এবং তাবলীগ জামাতের আমিরের সাথে কথা বলে জানা যায় তাবলীগ জামাতের লোকেরা কোন আইনি কর্মকাণ্ডে যাবে না।
বেতাগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডাক্তার রবীন্দ্রনাথ সরকার বলেন তাদের অবস্থা প্রথমে আশঙ্কাজনক ছিল পরবর্তীতে চিকিৎসার মাধ্যমে তারা এখন মোটামুটি সুস্থের দিকে।

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Back to top button