বেতাগী -কচুয়া বিশখালী নদীতে ফেরি চালু করার জন্য মিটিং মন্ত্রলাণয়।

ঝালকাঠি জেলার কাঠালিয়া উপজেলার বিষখালী নদীতে কচুয়া-বেতাগী স্থানে ফেরি চালু করনের জন্য মিটিং করার প্রস্ততি নিচ্ছে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়। সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তর থেকে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস গত ২৬ আগস্ট বিআইডব্লিউটিএর পরিচালক বরাবরে পত্র প্রেরণ করে নদীর হাইড্রোগ্রাফি প্রতিবেদন চেয়েছে।

এর আগে ২০১৬ সাল থেকে পত্র দিলেও কোন রিপোর্ট সওজ পায়নি। বিষয়টি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব আতিকুর রহমান রুবেল জানার পরপরই বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমোডোর গোলাম সাদেকের কাছে গিয়ে নদীর ম্যাপ খরচ নিজে দিয়ে গত ১ সেপ্টেম্বর বিআইডব্লিউটিএর পরিচালক শামছুন্নাহার স্বাক্ষরিত পত্র সড়ক পরিবহন অধিদপ্তরে পৌঁছে দেন বলে জানা গেছে।

এরপর সওজ হেড কোয়ার্টার থেকে চীফ ইজ্ঞিনিয়ার আব্দুস সবুর স্বাক্ষরিত পত্র ৬ সেপ্টেম্বর সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর ব্যবস্থা করছেন। এ পত্রের আলোকে মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট শাখা থেকে উপসচিব ফামিদা হক খান ফাইল তুলছেন। এখন মন্ত্রণালয়ে অতিরিক্ত সচিব আব্দুল মালেকের সভাপতিত্বে মিটিং করার প্রস্তুতি চলছে। চলতি অক্টোবর মাসের মধ্যে কচুয়া-বেতাগী স্থানে ফেরি চালু করনের জন্য উচ্চ পর্যায়ের মিটিং হতে পারে। এরপরে ফেরি চালু করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বিগত প্রায় ২৪ বছর আগ থেকে ফেরির দাবি ছিল সংশ্লিষ্ট এলাকার জনগণের। এ ফেরির বিষয়টি এতো বছরেও মন্ত্রণালয়ে মিটিং পর্যায়ে কেউ নিতে পারেনি। সম্প্রতি স্থানীয় সংসদ সদস্য বি এইচ হারুন এর সহযোগিতা নিয়ে আতিকুর রহমান রুবেল বিষখালী নদীর কচুয়া-বেতাগী স্থানে ফেরি স্থাপনের জন্য ফাইল সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের নিয়েছেন। খবরটি জানতে পেরে আনন্দিত এলাকাবাসী।

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Back to top button