মোংলায় দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া

আকাশ মেঘাচ্ছন্ন। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত সূর্যেরও দেখা মেলেনি। ঝড়ের প্রভাবে মোংলা বন্দরের পশুর নদীতে দুপুরের জোয়ারে স্বাভাবিকের তুলনায় পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। ঝড়ের আশঙ্কায় ভয়ে ও চিন্তায় রয়েছেন নদীর পাড়ের পরিবার ও নদীতে জীবিকা নির্বাহকারী মানুষগুলো। 

ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাবে মোংলা বন্দরসহ সংলগ্ন উপকূলজুড়ে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া বিরাজ করছে। আজ শনিবার ভোরে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হয়েছে যা থেমে থেমে অব্যাহত রয়েছে।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাস্টার কমান্ডার শেখ ফখরউদ্দীন বলেন, আমরা বাংলাদেশ, ভারত ও ইউএসএ’র আবহাওয়া বুলেটিন পর্যবেক্ষণ করছি।

যদিও এটি আমাদের দিকে আঘাত হানার খুব বেশি সম্ভাবনা নেই। তারপরও আমরা প্রস্তুত আছি। বন্দরের সকল কার্যক্রম স্বাভাবিক। মোংলা বন্দরে বিদেশি জাহাজের আসা-যাওয়া, পণ্য বোঝাই-খালাস ও পরিবহণ স্বাভাবিকভাবেই চলমান রয়েছে। 

এদিকে, ঘূর্ণিঝড়ের প্রাথমিক প্রস্তুতি নিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় প্রশাসন। ‘জাওয়াদ’ এখন মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে প্রায় ৮শ ৮৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। ঝড়ের পরিস্থিতি বুঝে সকল ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতির নেয়া হবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার বলেন, ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের আশঙ্কায় ইতিমধ্যেই আমরা সভা করে প্রস্তুতি নিয়েছি। ঝড়ের পরিস্থিতি বুঝে সকল ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Back to top button