সপ্তম ব্যালন ডি’অর উঠলো মেসির হাতেই

সাতবার!

অমিত প্রতিভা ও অবিশ্বাস্য ধারাবাহিকতার মিশেলে বিষ্ময়সূচক চিহৃটি তাঁর নামের সঙ্গে সব সময়ই লেপ্টে থাকে। প্যারিসের থিয়েখ দু শাতেলে ব্যালন ডি’অর অনুষ্ঠানেও সে বিষ্ময় ধরে রাখলেন লিওনেল মেসি; সপ্তমবারের মতো জিতলেন ব্যালন ডি’অর!

সপ্তমবারের মতো ফুটবলের সবচেয়ে মর্যাদার পুরস্কার ব্যালন ডি’অর জিতলেন আর্জেন্টাইন মহাতারকা লিওনেল মেসি। সোমবার দিবাগত রাতে প্যারিসের আলো ঝলমলে থিয়েটার ডু চ্যাটেলেটের অডিটোরিয়ামে ইতিহাসের প্রথম ফুটবলার হিসেবে সপ্তম ব্যালন ডি’অর গ্রহণ করেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

ফ্রান্স ফুটবল ম্যাগাজিনের দেওয়া গত বছরের সেরা খেলোয়াড়ের এ পুরস্কার জয়ের দৌড়ে ফেবারিট ছিলেন পিএসজির আর্জেন্টাইন এ তারকা। রবার্ট লেফানডভস্কি এই পুরস্কার জয়ে ছিলেন মেসির নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী। লড়াইটা শুধু এই দুজনের মধ্যেই দেখেছেন বেশির ভাগ বিশ্লেষক।

ব্যালন ডি’অরের লড়াইয়ে মেসি পেছনে ফেলেছেন বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ স্ট্রাইকার রবার্ট লেভানদোস্কি ও রিয়াল মাদ্রিদের ফরাসি স্ট্রাইকার কারিম বেনজেমাকে। এবার এই লড়াইয়ে অনেক পিছিয়ে ছিলেন সময়ের আরেক অন্যতম সেরা তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।

৩৪ বছর বয়সী মেসি বছরের প্রথম ভাগে বার্সেলোনার হয়ে ছিলেন দুরন্ত ফর্মে। এরপর আর্জেন্টিনার হয়ে জিতেছেন পরম আরাধ্য কোপা আমেরিকা শিরোপা। সেই আসরে সর্বোচ্চ গোলদাতা ও সর্বোচ্চ এসিস্টদাতা ছিলেন মেসি। টুর্নামেন্টসেরার পুরস্কারও উঠেছিল তাঁর হাতেই।

নানা নাটকীয়তা শেষে মেসি বার্সেলোনা ছেড়েছেন এরপর। নতুন ক্লাব পিএসজি’তে এরই মধ্যে নিজেকে মানিয়েও নিয়েছেন তিনি। মেসির হাত ধরেই প্রথমবারের মতো পিএসজি’র ঘরে এসেছে ব্যালন ডি’অর।

kalerkantho

ব্যালন ডি’অর পুরস্কার দিয়ে থাকে ফ্রেঞ্চ ফুটবল ম্যাগাজিন। তারা প্রথমে ৩০জন ফুটবলারকে বাছাই করে পুরস্কারের জন্য। এরপর ১৮০ জন নির্বাচিত সাংবাদিকের ভোটে ৩০ জন থেকে কমিয়ে তালিকাটা ছোট করে আনা হয় ৫ জনে।

এরপর এই ৫ জনের মধ্য থেকে সেরা ফুটবলার বাছাই করা হয় ৫০ জন বিশেষ সাংবাদিকের ভোটে। এ জায়গায় পয়েন্ট সিস্টেম রাখা হয়। ভোটাররা তাদের পছন্দের সেরা ফুটবলারকে নাম্বার দেবেন ৬, এরপর ৪, ৩, ২ এবং ১ করে। একইভাবে নারী ফুটবলার, সেরা উদীয়মান এবং সেরা গোলরক্ষক নির্বাচন করা হয়।

শেষ পর্যন্ত ভোটাভুটিতে লেফানডভস্কিকে হারিয়ে নিজের সর্বোচ্চসংখ্যক ব্যালন ডি’অর জয়ের রেকর্ডকে আরও এক ধাপ উঁচুতে নিয়ে গেলেন ৩৪ বছর বয়সী মেসি।

সংক্ষিপ্ত পাঁচজনের তালিকায় উঠে আসেন মেসি, লেফানডভস্কি, জর্জিনিও, করিম বেনজেমা ও এনগোলো কান্তে। এই পাঁচ খেলোয়াড়ের মধ্যে সাংবাদিকদের সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে পুরস্কারটি জিতলেন মেসি। দ্বিতীয় হয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ স্ট্রাইকার রবার্ট লেফানডস্কিকে। ‍তৃতীয় চেলসির ইতালিয়ান মিডফিল্ডার জর্জিনিও।

বিস্তারিত আসছে…।

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Back to top button