বরগুনার পাথরঘাটা থেকে সাড়ে তিন ফুট লম্বা একটি মেছোবাঘ উদ্ধার।

খাবারের সন্ধানে বন থেকে লোকালয়ে আশা সাড়ে তিন ফুট লম্বা একটি মেছো বাঘ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার(১৪ সেপ্টেম্বর) সকালে বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার কালমেঘা ইউনিয়নের মৃত মো. বজলুর রহমানের বসতবাড়িতে ঘোরাঘুরি করতে দেখে বাঘটিকে ধরে বেঁধে রাখা হয়।

বজলুর রহমানের ছেলে অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান বলেন, ‘প্রতিদিনের মতো সকালে ঘুম থেকে উঠে আমার স্ত্রী মুরগি ছাড়তে গিয়ে মুরগির ঘরের নিচে বাঘের ছানা ঘোরাঘুরি করতে দেখতে পায়। পরে আমরা যত্নসহকারে বেঁধে রেখে বন বিভাগে খবর দিলে তাঁরা এসে বাঘটিকে নিয়ে যান।’

বন বিভাগের পাথরঘাটা রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. মনিরুল হক বলেন, ‘এটি মেছো বাঘ। হয়তো কাছের কোন বন থেকে খাবারের উদ্দেশ্যে অথবা মানুষের ভয়ে এসেছে।’

পাথরঘাটা রেঞ্জ কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম আরও জানান, ‌‘বন বিড়াল অথবা মেছোবাঘ খুব দ্রুতগতির প্রাণী। এরা হাঁস-মুরগি, কবুতর ইত্যাদি শিকার করে খায়। বনকর্মীরা সজাগ দৃষ্টি রাখায় গ্রামবাসীর হাত থেকে মেছোবাঘটি নিরাপদে উদ্ধার করা গেছে।’ তিনি জনগণকে বন্যপ্রাণী হত্যা থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানান।

চরলাঠিমারা বিট কর্মকর্তা ইউসুব আলী হাওলাদার জানান, কয়েকদিন ধরে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া চলছে। তীব্র বাতাস আর সাগর উত্তাল থাকায় পানির উচ্চতা স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে বেশি। ফলে উপকূলের বনজঙ্গল বেশ খানিকটা তলিয়ে গেছে। তাই খাদ্য আর নিরাপদ আশ্রয়ের সন্ধানে হরিণঘাটা বনের পশুপাখি লোকালয়ে প্রবেশ করেছে। আটক মেছোবাঘটি বেশ কিছু দিন ধরে এলাকায় কৃষকের হাঁস-মুরগি খাচ্ছিল। তাই স্থানীয়রা ফাঁদ পেতে বাঘটিকে আটক করে বন বিভাগকে খবর দেয়। পরে রেঞ্জ কর্মকর্তার নেতৃত্বে বন বিভাগের কর্মীরা গিয়ে বাঘটি উদ্ধার করেন। মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে পাথরঘাটা সদর ইউনিয়নের হরিণঘাটা সংরক্ষিত বনে এটিকে অবমুক্ত করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বন বিভাগের পাথরঘাটা রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. মনিরুল হক বলেন, মেছো বাঘটি হরিণঘাটা বনে অবমুক্ত করা হয়েছে।

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button